Breaking News

সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেল আওয়ামী লীগ

এশিয়ার বৃহত্তম বার খ্যাত ঢাকা আইনজীবী সমিতির (ঢাকা বার) ২০১৮-১৯ মেয়াদের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও সমমনাদের সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সাদা প্যানেল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে। ২৭ পদের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক ও অপর ৭টি সম্পাদকীয় পদসহ ১৪টি পদে বিজয়ী হয়েছেন তারা।

অপরদিকে বিএনপি ও সমমনাদের সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেল (নীল প্যানেল) সভাপতি ও অপর ৩টি সম্পাদকীয় পদসহ ১৩টি পদে জয়লাভ করেছে।

ভোট গণনা শেষে শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা বার নির্বাচনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার খন্দকার আব্দুল মান্নান এ ফল ঘোষণা করেন।

সভাপতি পদে নীল প্যানেলের গোলাম মোস্তফা খান চার হাজার ৮শ ১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। সাদা প্যানেলের আবদুর রহমান হাওলাদার পান ৪ হাজার ৪৬ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে সাদা প্যানেলের মো. মিজানুর রহমান মামুন ৪ হাজার ৮১২ ভোট পেয়ে নীল প্যানেলের প্রার্থী হোসেন আলী খান হাসানকে পরাজিত করেন। হোসেন আলী খান হাসান পান ৪ হাজার ৪৯ ভোট।

সাদা প্যানেলের অন্য বিজয়ীরা হলেন- সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী শাহানারা ইয়াছমিন, সহ-সভাপতি পদে মো. রুহুল আমিন, ট্রেজারার পদে আরিফুর রহমান চৌধুরী সুমন, সিনিয়র সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মোস্তাফিজুর রহমান তালুকদার দিপু, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো. কামাল হোসেন পাটোয়ারী, দফতর সম্পাদক পদে আব্দুর রশিদ ও লাইব্রেরি সম্পাদক পদে এম মনিরুজ্জামান মনির এবং সদস্য পদে আব্দুর রব খান পল্লব, আসাদুজ্জামান বাবু, মো. সাইফুজ্জামান টিপু, সুমন মিয়া, মির্জা মো. জামাল হোসেন ও সিফাত নাহার সুমি।

নীল প্যানেলের বিজয়ীরা হলেন- সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে শাহনাজ বেগম শিরীন, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক পদে এমএবিএম খায়রুল ইসলাম লিটন, খেলাধুলা সম্পাদক পদে মোহাম্মাদ খলিলুর রহমান এবং সদস্য পদে একতানদার হোসেন হাওলাদার বাপ্পি, হান্নান ভূঁইয়া, জাকিয়া সুলতানা মিষ্টি, মো. মুকতাদির আহমেদ কাজল, মো. জাহেদ উল আলম জ্যোতি, মেহেদী হাসান বাদল, জেবুন্নেছা খানম জীবন, শারমিন জাহান শিমু ও জহুরা খাতুন জুঁই।

ঢাকা বার এর ২০১৮-১৯ ইং মেয়াদের নির্বাচনের দুইদিনব্যাপি ভোটগ্রহণ ২৮ ফেব্রুয়ারি শেষ হয়। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার ও ২৮ ফেব্রুয়ারি বুধবার সকাল ৯টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৫টার দিকে শেষ হয়। মাঝে বিরতি ছিল এক ঘণ্টা। দুই দিনে ৯ হাজার ১১ জন ভোটার এ নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার ১ মার্চ বিকাল ৫ টায় ভোট গণণা শুরু হয়। ওই দিন রাত দশটার দিকে ভোট গণনাকে কেন্দ্র করে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার কারণে ভোট গণনা স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন।

গতকাল শনিবার সকাল ১০ টা ১৫ মনিটে ফের ভোট গণনা শুরু হয়ে শেষ হয় মধ্য রাতে। ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি ও ঢাকার পিপি খন্দকার আব্দুল মান্নান প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এ নির্বাচনে ২৭টি পদের বিপরীতে মোট ৫৫ জন প্রার্থী এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। ঢাকা আইনজীবী সমিতিতে নিবন্ধিত আইনজীবীর সংখ্যা প্রায় ২২ হাজার ২৪ জন হলেও এ বছর বৈধ ভোটারের সংখ্যা ছিল ১৬ হাজার ১২৯ জন। বাসস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes