বগুড়ায় পাসপোর্ট কর্মকর্তাকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় গ্রেফতার ৫

বগুড়া আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক মো. সাজাহান কবিরকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করার ঘটনায় বগুড়া শহর যুবলীগ নেতা ও পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোস্তাকিম রহমানসহ ৫জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার সীমান্ত এলাকা ডাঙ্গাপাড়ার সাতকুড়ি বাজার থেকে মোস্তাকিম রহমানকে গ্রেফতার করা হয়। মোস্তাকিমের বিরুদ্ধে এর আগেও বগুড়া সদর থানায় হত্যা, অস্ত্র আইন, চাঁদাবাজি ও মারপিটের ৪টি মামলা রয়েছে।

বগুড়ার আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস দালালমুক্ত করায় সন্ত্রাসীরাসহ দালালচক্র বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের কৈগাড়ি এলাকায় হামলা চালিয়ে মারাত্মক জখম করে সাজাহান কবিরকে। জখম অবস্থায় সাজাহান কবিরকে প্রথমে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও সন্ধ্যায় তাকে হেলিকপ্টারযোগে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

বগুড়া আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালককে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় প্রশাসনে তোলপাড় পড়ে যায়। পুলিশ প্রশাসন বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিয়ে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে পুলিশ সুপারের কনফারেন্স রুমে সাংবাদিকদের ব্রিফিং এ বগুড়ার পুলিশ সুপার মো. আলী আশরাফ ভূইঞা এসব তথ্য জানান।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বগুড়া পাসপোর্ট কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. শাজাহান কবিরের উপর হামলা ঘটনার সাথে মোস্তাকিম রহমানের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে।

গ্রেফতারকৃত যুবলীগ শহর কমিটির দফতর সম্পাদক ও বগুড়া পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোস্তাকিম রহমানের বিরুদ্ধে বগুড়া সদর থানায় ২০১২ সালে হত্যা, একই বছরের ২৩ এপ্রিলে অস্ত্র আইনে, মারপিট ও ২০১১ সালে চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে।

উল্লেখ্য, বগুড়া আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক সাজাহান কবির বাড়ি যাওয়ার জন্য বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে ইজিবাইকযোগে শহরতলীর শাকপালা যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে কৈগাড়ি এলাকায় বিভাগীয় বন অফিসের সামনে মোটরসাইকেলযোগে কয়েকজন দুর্বৃত্ত তার ইজিবাইকের গতি রোধ করে। তিনি কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাকে রাম দা দিয়ে ডান পায়ে কোপ দেয়। এসময় তিনি ইজিবাইক থেকে নেমে দৌড়ে বন অফিসের ভিতরে একটি কক্ষে ঢুকে দরজা আটকিয়ে দেন। দুর্বৃত্তরা ওই কক্ষের দরজা ভেঙ্গে তাকে বের করে কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়। ঘটনার পর পাসপোর্ট অফিসের অফিস সহকারী মো. শাজেনুর আলম বাদী হয়ে শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১১জন নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes