যে কারণে নোবেল পাননি হকিং

একাবিংশ শতাব্দির সেরা বিজ্ঞানীদের একজন ছিলেন পদার্থবিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং। ব্ল্যাকহোল বা কৃষ্ণগহ্বর ও আপেক্ষিকতা নিয়ে গবেষণার জন্য বিখ্যাত ছিলেন ব্রিটিশ এই পদার্থবিদ। তারপরও জীবদ্দশায় তিনি পাননি কোনো নোবেল পুরস্কার।

কিন্তু কেন? জবাব মিলেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে।ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক পত্রিকার ‘দ্য সায়েন্স অব লিবার্টি’ প্রবন্ধের এর লেখক টিমোথি ফেরিস বলেন, যদিও হকিংয়ের ‘ব্ল্যাক হোলস’ তত্ত্বটি এখন তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানে দৃঢ়ভাবে গ্রহণ করা হয়েছে। তবে এটির সত্যতা যাচাই করার কোনো উপায় নেই।

সমস্যাটা আসলে এখানেই। এই ধারণা প্রমাণ করার কোনো উপায় নেই। যদি কোনোভাবে তিনি সেই তত্ত্ব প্রমাণ করতে পারতেন তবে নিশ্চয়ই নোবেল পেতেন বলে জানান ফেরিস।

টিমোথি আরও বলেন, একটি ব্ল্যাকহোলের জীবন অনেক দীর্ঘ হয়। তাই শত কোটি বছরেও কোনো ব্ল্যাকহোলের মৃত্যুদশা দেখা সম্ভব না। একারণেই তত্ত্বটি প্রমাণ করা আপাতত অসম্ভব।

ঠিক একই কারণে প্রমাণের অভাবে ১৯৬৪ সালে ‘হিগস বোসন; তত্ত্বের জন্য নোবেল পাননি পিটার হিগস। ইউরোপিয়ান গবেষণা সংস্থা ‘সিইআরএন’ এই তত্ত্বকে প্রমাণ করার পরই ২০১৩ সালে ফ্রাঁসোয়া এঙ্গলার্টের সঙ্গে যৌথভাবে নোবেল পান পিটার হিগস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes