মুশফিকুরের হাফসেঞ্চুরি : ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের হার

পরপর দুই ম্যাচে হাফসেঞ্চুরি করেছেন মুশফিকুর রহিম। তবে তার এই নৈপুণ্য সত্ত্বেও ভারতের বিপক্ষে পারল না বাংলাদেশ। জয়ের জন্য ১৭৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ৬ উইকেটে ১৫৯ রানে থেমেছে টাইগাররা। ১৭ রানে হেরেছে তারা। প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন মুশফিক। করেছেন হাফসেঞ্চুরি। তবুও হলো না। এই জয়ে ভারত চলে গেল নিদাহাস ট্রফি টি-টোয়েন্টি সিরিজের ফাইনালে। অপেক্ষায় থাকতে হলো বাংলাদেশকে। আগামী ১৬ মার্চ লিগপর্বের শেষ ম্যাচেই নির্ধারিত হবে ফাইনালে ভারতের প্রতিপক্ষ হবে বাংলাদেশ নাকি শ্রীলঙ্কা।

জয়ের জন্য ১৭৭ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৪০ রানের মধ্যে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েছে বাংলাদেশ। দলীয় ১২ রানে লিটন দাস (৭) আউট হয়ে যান। এরপর তামিম কিছুটা হাত খুলে খেলার চেষ্টা করেন। কিন্তু দলীয় ৩৫ রানে ওয়ানডাউনে নামা সৌম্য ফিরে যান মাত্র ১ রান করে। আর তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে তামিম আউট হন। ১৯ বল থেকে চারটি চার ও একটি ছক্কার মারে তামিম করেন ২৭ রান।

এরপর মাহমুদউল্লাহ-মুশফিক জুটি বেঁধেছিলেন। তবে দলীয় ৬১ রানে মাহমুদউল্লাহ ফিরে গেলে বাংলাদেশের জন্য সমীকরণ কঠিন হতে থাকে। মুশফিক-সাব্বির জুটি এরপর একটা আশা জাগিয়েছিলেন। তবে দলীয় ১২৬ রানে সাব্বির (২৭) আউট হওয়ার পর ম্যাচ হাতছাড়া হতে থাকে টাইগারদের। মুশফিক একপ্রান্তে লড়লেও অন্যপ্রান্ত থেকে সহায়তা পাননি। শেষ ওভারে মিরাজও আউট হয়ে যান ৭ রান করে। মুশফিক ৫৫ বল থেকে ৮টি চার ও একটি ছক্কার মারে ৭২ রান করে অপরাজিত থাকেন। আগের ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সমান ৭২ রান করে দলকে জয় এনে দিয়েছিলেন মুশফিক।

এর আগে শুরুতে ব্যাট করে বাংলাদেশকে জয়ের জন্য ১৭৭ রানের টার্গেট দিয়েছে ভারত। কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে নিদাহাস ট্রফি ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে টস জিতে ভারতকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বাংলাদেশ। শুরুতে ব্যাট করে ভারত নির্ধারিত ওভার শেষে তিন উইকেটে ১৭৬ রান করে ভারত।

ভারতের প্রথম উইকেটের পতন হয় ১০ম ওভারের পঞ্চম বলে। দলীয় ৭০ রানে ভারতের ওপেনিং জুটি ভাঙতে সক্ষম হন রুবেল হোসেন। ২৭ বল থেকে পাঁচটি চার ও একটি ছক্কার মারে ৩৫ রান করা ধাওয়ানকে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান তিনি। এরপর শেষ ওভারে বাকি দুটি উইকেটের পতন ঘটে। শেষ ওভারের প্রথম বলে ৩০ বলে ৪৭ করা রায়না সৌম্যর হাতে ধরা পড়েন। অপরদিকে ইনিংসের শেষ বলে রান আউট হন রোহিত শর্মা। ৬১ বল থেকে পাঁচটি চার ও পাঁচটি ছক্কার মারে ৮৯ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন রোহিত। ২৭ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন রুবেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes