বাবার অপরাধে ৩ মার্কিনিকে আটকে রেখেছে চীন

0
6

অর্থনৈতিক অপরাধের দায়ে তিন মার্কিন নাগরিককে চীন ত্যাগ করার সময় বাধা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

নিউইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়, চীনা বংশোদ্ভূত সান্দ্রা হান ও তার দুই সন্তান সিন্থিয়া ও ভিক্টর লিউকে দেশত্যাগে বাধা দেয় চীন। তারা গত জুন মাসে সেখানে গিয়েছিল।

সিন্থিয়া ও ভিক্টর জানায়, পুলিশ তাদের বাবা লিউ চ্যাংমিংকে চীনে ফিরে আসতে বাধ্য করার জন্যই এ পদক্ষেপ নিয়েছে।

তিনি চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের একজন সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা। তার বিরুদ্ধে ব্যাংক জালিয়াতির অভিযোগ রয়েছে।

তাদের মাকে ‘ব্ল্যাক জেল’ নামক গোপন কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে বলেও টাইমসকে জানান তারা।

মার্কিন কর্মকর্তা ও পরিবারের সদস্যদের তারা জানান, তাদের বিরুদ্ধে কোনো অপরাধের অভিযোগ না থাকলেও বাড়ি ফিরে যেতে বাধা দেয়া হচ্ছে।

চীনের কর্তৃপক্ষ সোমবার তাদের পদক্ষেপের সমর্থনে একটি বিবৃতি দেয়। এতে বলা হয়, এদের সবারই চীনা নাগরিকত্বের বৈধ সনদ রয়েছে। এরা অর্থনৈতিক অপরাধ করেছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এ কারণে চীনের পুলিশ তাদের দেশত্যাগে বাধা দেয়।

চীনা আইনে দ্বৈত নাগরিকত্বকে স্বীকৃতি দেয়া হয় না।

অন্য দেশের নাগরিকত্ব পাওয়া চীনাদের মাঝেমধ্যেই সেখানে আটকে দেয়ার ঘটনা ঘটে। কিন্তু, যুক্তরাষ্ট্রে জন্ম নেয়া কাউকে সেখানে আটকে রাখার ঘটনা এটাই প্রথম।

যুক্তরাষ্ট্রে জন্ম নেয়া ভিক্টর (১৯) জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। সিন্থিয়া একটি কনসাল্টিং ফার্মে কর্মরত।

তাদের বাবা লিউ চীনে একজন পরোয়ানাভুক্ত আসামি। তিনি চীনের ইতিহাসের সর্ববৃহৎ ব্যাংক জালিয়াতির ঘটনায় জড়িত ছিলেন। ডেভেলপারদের ১৪০ কোটি ডলার অবৈধ ঋণ দিতে সহায়তা করেন তিনি।

২০০৭ সালে লিউ চীন থেকে পালিয়ে যান। ২০১২ সাল থেকে তিনি পরিবারের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ রাখেন না বলে জানান সন্তানেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here