জয়পুরহাটে জেঁকে বসেছে শীত, বাড়ছে দুর্ভোগ

0
9

সকাল থেকে সূর্যের দেখা নেই জয়পুরহাটে। কুয়াশায় আচ্ছন্ন চারদিক। নতুন করে জেঁকে বসছে শীত। তীব্র শীতে নাকাল মানুষ। জনজীবন বিপর্যস্ত। সকাল ১০টায়ও লাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। প্রচন্ড শীতে ঘর থেকে বের হচ্ছে না মানুষ। সবচেয়ে বিপাকে দিনমজুর ও কৃষকরা। এছাড়াও ঠান্ডাজনিত নানারোগে আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন বাড়ছে হাসপাতালগুলোতে। এর মধ্যে শিশু ও ‍বৃদ্ধরা বেশি।

রবিবার থেকে নতুন করে পড়তে শুরু করে শীত। যার কারণে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। শীতের জন্য তারা কাজে বের হতে পারছেন না।

মঙ্গলবার, ১৪ জানুয়ারি সকাল ৮টার দিকেও ফসলের মাঠ ঘুরে দেখা মেলেনি দিনমজুরদের। শীতের কারণে তারা মাঠে কাজ করতে পারছে না। 

এদিকে তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশার কারণে বীজতলা ও আলু নষ্ট হওয়ার শঙ্কায় দিন কাটছে কৃষকদের। কুয়াশার কারণে বীজতলা পলিথিন দিয়ে ঢেকেও রক্ষা হচ্ছে না। বিবর্ণ হয়ে মরে যাচ্ছে বীজতলা। ঘন কুয়াশার কারণে আলুক্ষেত নিয়ে শঙ্কায় আছেন তারা।

শীত নিবারণের জন্য দরিদ্র ও ছিন্নমূল মানুষদের মাঝে সরকারি ও বেসরকারিভাবে কম্বল বিতরণ করছে বিভিন্ন সংগঠন। এরই মধ্যে আক্কেলপুর উপজেলায় প্রশাসনের পাশাপাশি রুকিন্দিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আহসান কবির শীতার্তদের মাঝে দশ হাজার কম্বল বিতরণ করেছেন। একইভাবে জয়পুরহাট পৌর মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক দশ হাজার কম্বল বিতরণ করেছেন পৌর এলাকার দরিদ্র মানুষদের মাঝে। এছাড়া অন্যান্য উপজেলাগুলোতেও প্রায় প্রতিদিনই সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে কম্বল বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। 

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাকির হোসেন বলেন, গত তিনদিন থেকে জেলায় নতুন করে শীতের প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। শীতের কারণে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে গত কয়েকদিনে প্রায় ৭০ হাজারেরও বেশি কম্বল বিতরণ করা হয়েছে’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here