শেষ ওভারে মাথা নিচু করে রেখেছিলেন মুম্বাইয়ের মালিক নিতা

0
13

একেই বলে সত্যিকার ফাইনাল। একে তো টি-টোয়েন্টি। তারওপর আইপিএলের মত টি-টোয়েন্টি ফ্রাঞ্জাইজি টুর্নামেন্টের ফাইনাল। সেই ফাইনালের প্রতিটি বলে উত্তেজনা না চড়ালে দর্শকদের পয়সা উসুল হবে কি করে?

সেই দাবি থেকেই হয়তো হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আর চেন্নাইয়ের খেলোয়াড়রা দু’হাত ভরে দিয়েছেন দর্শকদের। একেবারে শেষ বলে এসে নিষ্পত্তি হয়েছে ম্যাচের। মাত্র ১ রানে চেন্নাইকে হারিয়ে চতুর্থবার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হলো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

অথচ, সেই ১ বলের আগে কত নাটক মঞ্চস্থ হলো। উত্তেজনায় ঠাসা হয়ে থাকলো শেষ কয়েকটি মুহূর্ত। শেন ওয়াটসন যখন মালিঙ্গা আর ক্রুনাল পান্ডিয়ার দুই ওভার থেকে ৪০ রান তুলে ফেললেন, তখন চেন্নাইয়ের জয়ই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল বলা যায়।

কিন্তু ১৯তম ওভারে এসে জসপ্রিত বুমরাহ থমকে দেন চেন্নাইকে। দিলেন মাত্র ৯ রান। তাও ৪ রান ছিল বোনাস। শেষ বলে কুইন্টন ডি কক, বল ধরে না রাখতে পেরে দিলেন বাই হিসেবে ৪ রান। ফলে শেষ ওভারে চেন্নাইয়ের জয়ের জন্য প্রয়োজন হয় ৯ রান।

বোলার লাসিথ মালিঙ্গা। তার আগেই যখন স্নায়ুর উত্তেজনা চরমে উঠলো, তখনই কুইন্টন ডি ককের অমার্জনীয় ভুল। বুমরাহর বল গ্লাভসে নিয়েও ছেড়ে দিলেন এবং আত্মঘাতিভাবেই চারটি রান দিয়ে দিলেন চেন্নাইকে।

এ সময় বারবারই মাঠের পাশে বসা মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স মালিক নিতা আম্বানি এবং তার সঙ্গে আকাশ আম্বানিকে দেখানো হচ্ছিল। ডি ককের ওই বোনাস বাউন্ডারির উপহার দেয়ার পর লা জবাব হয়ে গেছিলেন নিতা। অবাক দৃষ্টিতে শুধু মাঠের দিকে তাকিয়ে থাকতে দেখা গেছে তাকে।

শেষ ওভার করার জন্য যখন মালিঙ্গা বল করতে আসেন, তখন টিভির পর্দায় দেখা যাচ্ছিল, মাথা নিচু করে রয়েছেন নিতা আম্বানি। এমনকি স্নায়ুর উত্তেজনা বশত মালিঙ্গার করা শেষ বলটিও দেখেননি তিনি। হাত দিয়ে মুখ ঢেকে রেখেছিলেন। শেষ পর্যন্ত অবিশ্বাস্যভাবে মুম্বাই জিতলো ১ রানে।

ম্যাচ শেষে নিতা আম্বানি নিজেই বললেন, ‘আমি শেষ ওভার তো দেখিইনি। বিশেষ করে শেষ বল (হাসি)। প্রথমত অভিনন্দন আমাদের অধিনায়ককে, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের আরেকটি শিরোপা জয়ে খুব সুন্দর নেতৃত্ব দেয়ার জন্য।’

নিতা আম্বানির ছেলে এবং মুম্বাইর আরেকজন মালিক আকাশ আম্বানি বলেন, ‘লাসিথ মালিঙ্গা হচ্ছেন আইপিএলের সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক। এ কারণেই সম্ভবত সে এতটা ভালো বল করে। মুম্বাইর পরিবেশও আমাদেরকে একসঙ্গে থেকে এমন দারুণ একটি টুর্নামেন্ট খেলার উপযোগি করে দিয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here